বঙ্গবন্ধুর ঋণ শোধ করার সময় এসেছে: আইনমন্ত্রী

8b24514d22f50bd19c22cd9b659e291f 62fa306d54370
Share the content

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘বিএনপির সময় রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতার কারণে আজ বঙ্গবন্ধুর তিন খুনির হদিস নেই। তারা কোথায় আছে কেউ জানে না। যতদিন এই তিনজনকে ধরে রায় কার্যকর না হবে, ততদিন পর্যন্ত তাদের খোঁজা হবে। ইঁদুরের গর্তে গিয়েও লুকিয়ে থাকতে পারবে না। সময় এসেছে বঙ্গবন্ধুর ঋণ শোধ করার।’ সোমবার (১৫ আগস্ট) দুপুরে আখাউড়া রেলস্টেশন চত্বরে উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।  

বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনতে আইনি ‘জটিলতার’ কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘কানাডার আইনে মৃত্যুদণ্ডের কথা নেই। তাদের আইনে বলা আছে অন্য দেশের কেউ যদি মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত হয় তাহলে তাকে সেই দেশে ফিরিয়ে দেওয়া যাবে না। আমরা এ বিষয়ে আদালতে দ্বারস্থ হয়ে একটি জায়গায় জিতেছি। আশা করছি শিগগিরই তাকে ফিরিয়ে আনা যাবে।’

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে দেশের মানুষ কষ্টে আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সময় এখন কঠিন চলছে। সারাবিশ্বে সবকিছুর অভাব। বাংলাদেশের মানুষের কষ্ট শেখ হাসিনা বোঝে। আমরা এ অবস্থা থেকে উত্তরণে আপ্রাণ চেষ্টা করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে দাবাই রাখা যাবে না, শেখ হাসিনা এটাই প্রমাণ করেছে যে বঙ্গবন্ধুর রক্তকে দাবাই রাখা যায় না। বঙ্গবন্ধুর রক্তকে যখন দাবাই রাখা যায় না, তখন বাংলার মানুষকে ও দাবাই রাখা যায় না।’

আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর সভাপতিত্ত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন আইন সচিব গোলাম সারোয়ার, আখাউড়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. তাকজিল খলিফা কাজল, সহকারী পুলিশ সুপার (কসবা সার্কেল) মো. কামরুল ইসলাম, আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার অংগ্যজাই মারমা ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পিয়ারা আক্তার পিওনা প্রমুখ।

এর আগে মন্ত্রী ট্রেনে করে আখাউড়া রেলস্টেশনে নেমে শোক র‌্যালিতে অংশ নেন। র‌্যালি শেষে উপজেলা চত্বরে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। 

*Compiled from The Daily Ittefaq

1 thought on “বঙ্গবন্ধুর ঋণ শোধ করার সময় এসেছে: আইনমন্ত্রী”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *